সিলেটে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে ট্রাক থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ


প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৪, ২০২৩, ২:৪৭ পূর্বাহ্ন / ১২১
সিলেটে ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে ট্রাক থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম স্বাধীনের বিরুদ্ধে পাথরবাহী ট্রাক থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার (১২ অক্টোবর) সন্ধ্যায় স্বাধীনের বিরুদ্ধে কোম্পানীগঞ্জ থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। উপজেলার ভোলাগঞ্জ গ্রামের বাসিন্দা তোফাজ্জল হোসেন রাজু এ অভিযোগ দায়ের করেন। ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি হিল্লোল রায়।

অভিযোগকারী তোফাজ্জল হোসেন রাজু লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করেন, ‘আমি বৃহস্পতিবার সকালে ভোলাগঞ্জের মেসার্স মায়ের দোয়া ওয়াশিং প্লান্ট-১ থেকে ৪৭৬ ফুট সিঙ্গেল (নুড়ি পাথর) ক্রয় করে ট্রাক যোগে সিলেটের বিশ্বনাথের উদ্দ্যেশ্যে পাঠাই। পথিমধ্যে সিলেট-ভোলাগঞ্জ মহাসড়কের ইসলামপুর নামক স্থানে সৈয়দ আলী ফুয়েল পাম্পের সামনে গাড়িটির গতিরোধ করা হয়। কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম স্বাধীনসহ ১০-১২ জন ব্যক্তি দেশি অস্ত্র নিয়ে ট্রাকের গতিরোধ করেন।’

লিখিত অভিযোগে রাজু আরও উল্লেখ করেন, ‘ঘটনার এক পর্যায়ে গাড়ি চালককে টেনে হেঁচড়ে ড্রাইভিং সিট থেকে নামানো হয়। পরে স্বাধীন চালকের ব্যাক্তিগত মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে আমাকে ফোন দেয়। ফোন করে স্বাধীন আমাকে বলেন, ট্রাক আটক করা হয়েছে। ছাড়িয়ে নিতে চাইলে এক লাখ টাকা দিতে হবে। না হলে ট্রাকটি পুড়িয়ে ফেলা হবে।’

টাকার লেনদেনের কথা উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগে তিনি উল্লেখ করেন, ‘আমি ঘটনাস্থলে পৌঁছামাত্র আসামিরা আমাকে বলেন, বাঁচতে চাইলে এক লাখ টাকা দিতে হবে। এ সময় তারা দেশি অস্ত্র দিয়েও আমাকে ভয় দেখায়। নিরুপায় হয়ে নগদ ৮,৫০০ টাকা এবং তাদের ০১৬২২৪৯৫৮৯৩ নাম্বারে বিকাশে ৭,৫০০ টাকাসহ সর্বমোট ১৬,০০০ টাকা প্রদান করি। এর আধা ঘন্টা পর আবারও স্বাধীন বর্ণি পয়েন্টে ট্রাকটি আটক করে চাঁদা দাবি করে। পরবর্তীতে উপস্থিত কয়েকজনের মধ্যস্থতায় ট্রাকটি ছেড়ে দেওয়া হয়।’

অভিযোগকারী রাজু বলেন, ‘কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ পরিচয় দিয়ে শাহ আলম স্বাধীনসহ ১০-১২জন সিঙ্গেল পাথর বোঝাই আমার ট্রাকটি আটক করে। পরে ১৬ হাজার টাকা দিয়ে আমার গাড়িটি ছাড়িয়ে নেই। টাকা লেনদেনের ডকুমেন্টস আমার কাছে সংরক্ষিত রয়েছে।’

এ ব্যাপারে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম স্বাধীনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার ফোন বন্ধ পাওযা যায়।

এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ওমর আলীর সঙ্গে মেবাইল ফোনে কথা হলে তিনি কালবেলাকে বলেন, ‘রাতে সাদাপাথর থেকে নৌকায় করে পাথর চুরি হয় এমন খবর পেয়ে আমরা রাতে ভোলাগঞ্জ এলাকায় যাই। সেখানে গিয়ে দেখি পুলিশের তৎপরতায় সাদাপাথর চুরি করতে পারছে না কেউ। এ সময় ২টি নৌকাও আটক করে পুলিশ। সকালে একটি গাড়ি আটক করা হয়। পরে সেটা ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে টাকা লেনদেনের বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেন।’

সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাহেল সিরাজের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

ছাত্রলীগ নেতার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজির অভিযোগের বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি হিল্লোল রায় বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

তবে অনুসন্ধানে ভিন্ন আরেকটি চিত্রও উঠে এসেছে। অন্য একটি অনুসন্ধানে জানা গেছে, উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞায় দীর্ঘদিন ধরে বন্ধ রয়েছে সিলেটের খনিগুলো থেকে বৈধভাবে পাথর উত্তোলন। কিন্তু অবৈধভাবে পাথর চুরি থামছে না। প্রশাসনকে ম্যানেজ করে রাতের আধারে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার ভোলাগঞ্জ সাদাপাথর পর্যটন এলাকা থেকে প্রতিদিনই চুরি হচ্ছে পাথর। বারকি নৌকা দিয়ে এসব পাথর চুরি করে ভোলাগঞ্জ ও কলাবাড়ির বিভিন্ন স্থানে মজুদ করে অসাধু পাথর চোরেরা। এরপর পাথরগুলো সোজা চলে যায় সিলেট শহরতলীর ধোপাগুলস্থ স্টোন ক্রাশিং জোনে।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম স্বাধীনের বিরুদ্ধে অভিযোগকারী তোফাজ্জল হোসেন রাজু নিয়মিতভাবে সাদাপাথর পর্যটন এলাকা থেকে চুরি করে আনা পাথর ক্রয় বিক্রয় করে আসছেন। কিছুদিন আগে অবৈধভাবে পাথর ক্রয়বিক্রয়ের অভিযোগে রাজুকে না পেয়ে তার মা ফাতেমা বেগমকে গ্রেপ্তারও করেছিলো ডিবি পুলিশ। তবুও বন্ধ হয়নি রাজুর অপকর্ম।

স্বাধীনের বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগে নুড়িপাথর উল্লেখ করা হলেও, প্রকৃতপক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল ৭টায় ভোলাগঞ্জ থেকে বোল্ডার ও ভুতু পাথর নিয়ে ধোপাগুল যাচ্ছিল তোফাজ্জল হোসেন রাজুর ভাড়াকরা হাইড্রোলিক ট্রাক। পথিমধ্যে ইসলামপুর নামক স্থানে ছাত্রলীগের সভাপতি ওমর আলী, তার বড়ভাই নাইম মিয়া, সহ সভাপতি জুনাইদ মিয়া, জাবের আহমদ, সাধারণ সম্পাদক স্বাধীনসহ অন্তত ডজনখানেক নেতাকর্মী ট্রাকটি আটক করেন। খবর পেয়ে রাজু ঘটনাস্থলে আসেন।

এ সময় রাজু ও ছাত্রলীগ নেতাদের মধ্যকার কথপোকথনের একটি ভিডিও ক্লিপ কালবেলার হাতে এসেছে। ভিডিওতে দেখা যায়, রাজু ছাত্রলীগ সভাপতি ওমর আলীকে বলছেন, ‘ভোলাগঞ্জ ফাঁড়ির পুলিশ পাথর বহনকারী বড় হাইড্রোলিক ট্রাক থেকে ৪ হাজার ও ছোট ট্রাক থেকে ২ হাজার টাকা করে চাঁদা নেয়। নদীতে বারকি নৌকা থেকে পুলিশ নেয় ৫০০ টাকা ও সিলেট জেলা ডিবি পুলিশ নেয় ২০০ টাকা করে।’

ওই সময় স্থানীয় এক সাংবাদিককে ডেকে আনেন। এরপর ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা ১৫০০০ টাকার বিনিময়ে ট্রাকটি ছাড়তে রাজি হন। কথামতো ৭৫০০ টাকা ওমর আলীকে দেন রাজু। বাকি ৭৫০০ টাকা উপজেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি জুনাইদ মিয়ার বিকাশ নম্বরে সেন্ড মানি করেন। বিকাশ লেনদেনের তথ্য কালবেলার কাছে সংরক্ষিত রয়েছে।

এদিকে মাত্র ১৫০০০ টাকায় বিষয়টি রফাদফা করায় সভাপতিসহ অন্যদের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে ওই স্থান ছেড়ে চলে যান ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম স্বাধীন। তিনি বর্ণি নামক স্থানে গিয়ে আবারও আটক করেন ট্রাকটি। এ সময় স্থানীয়দের হস্তক্ষেপে গাড়ি ছেড়ে দিতে বাধ্য হন।

ওই দিন সন্ধ্যায় কোম্পানীগঞ্জ থানায় বাদী হয়ে স্বাধীনের নাম উল্লেখ করে এবং আরও ১০-১২ জনকে অজ্ঞাত দিয়ে অভিযোগ দায়ের করেন তোফাজ্জল হোসেন রাজু। স্বাধীনকে আসামি করা হলেও একই কমিটির সভাপতি ওমর আলী, বিকাশে টাকা লেনদেনকারীসহ সভাপতি জুনাইদসহ অন্যান্যদের আসামি না করে স্বাক্ষী হিসেবে রাখা হয়েছে।

নামাজের সময় সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:১৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০১ অপরাহ্ণ
  • ৪:৩০ অপরাহ্ণ
  • ৬:২৬ অপরাহ্ণ
  • ৭:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ৫:৩৩ পূর্বাহ্ণ