এক মোহনায় মেসি-ম্যারাডোনা


প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ১৯, ২০২২, ১০:১৬ পূর্বাহ্ন / ৩৫৮
এক মোহনায় মেসি-ম্যারাডোনা

২০২২ কাতার বিশ্বকাপকে লিওনেল মেসির বিশ্বকাপ বললে বোধোহয় খুব একটা ভুল বলা হবে না। তিনিও যে ম্যারাডোনার মতোই সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আর্জেন্টিনাকে চ্যাম্পিয়ন করেছেন।

১৯৮৬ বিশ্বকাপকে বলা হয়ে থাকে ‘ম্যারাডোনার বিশ্বকাপ’। বলতে গেলে একা হাতেই আর্জেন্টিনাকে চ্যাম্পিয়ন করেছিলেন তিনি। তার দলের পার্শ্বনায়ক ছিলেন বুরুচাগা, হোর্হে ভালদানো, অস্কার রুগেরিরা।

২০২২ কাতার বিশ্বকাপকে লিওনেল মেসির বিশ্বকাপ বললে বোধোহয় খুব একটা ভুল বলা হবে না। তিনিও যে ম্যারাডোনার মতোই সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে আর্জেন্টিনাকে চ্যাম্পিয়ন করেছেন।সেনাপতি মেসির সৈনিক হিসেবে বুক চিতিয়ে লড়েছেন এমিলিয়ানো মার্তিনেস, হুলিয়ান আলভারেজ, এনসো ফার্নান্দেজ আর দি মারিয়ারা।

এক সময় তাকে শুনতে হয়েছে নানান কটাক্ষমূলক কথাবার্তা, মাত্র ১৩ বছর বয়সেই রোসারিও ছেড়ে পাড়ি জমিয়েছিলেন স্পেনে। চাইলে খেলতে পারতেন স্প্যানিশ জাতীয় দলের হয়ে, আর্জেন্টিনার টানে সেই প্রস্তাবও বারবার ফিরিয়ে দিয়েছেন মেসি। স্পেনের হয়ে খেললে আন্তর্জাতিক সব শিরোপার স্বাদ আগেই পাওয়া হয়ে যেতো মেসির।

সেই হাতছানিও টানেনি তাকে যতোটা টেনেছে মাতৃভূমি আর্জেন্টিনার হয়ে খেলার গৌরব। তবুও তাকে আর্জেন্টাইন হিসেবে মেনে নিতে যেন কষ্ট হতো খোদ আর্জেন্টাইনদেরই। অথচ মেসি তার সবকিছু বিলিয়ে দিতেও রাজি ছিলেন শুধুমাত্র আর্জেন্টিনার হয়ে খেলবেন বলে।

সেই আর্জেন্টাইন না হয়ে উঠতে পারা মেসির জন্যই এখন ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেল আর্জেন্টিনা। এই দীর্ঘ অপেক্ষা ঘোচাতে মেসির দিকেই যে চাতক পাখির মতো তাকিয়ে ছিলেন রোসারিও থেকে বুয়েন্স এইরেসের মানুষ। হয়তো অবশেষে তিনি পেরেছেন সত্যিকারের আর্জেন্টাইন হয়ে উঠতে।

দিয়েগো ম্যারাডোনাকে যতোটা ঈশ্বরসুলভ মর্যাদা দেয়া হতো, নিজের দেশে যেন সেই সম্মানটা বরাদ্দ ছিল না মেসির জন্য। ক্লাব ফুটবলে বার্সেলোনা-পিএসজির হয়ে যতো অর্জনই করুন না কেন, আর্জেন্টিনার মানুষের কাছে সবসময় দ্বিতীয় সেরাই হয়ে ছিলেন মেসি। কারণ ম্যারাডোনা যে আর্জেন্টিনাকে জিতিয়েছেন বিশ্বকাপ, যেখানে ব্যর্থ হয়েছেন মেসি।

কাতার বিশ্বকাপ জেতা আগেই অবশ্য আর্জেন্টিনার মানুষের মনে জায়গা করে নিতে পেরেছিলেন মেসি। ২০১৪ বিশ্বকাপ, ২০১৫ ও ২০১৬ কোপা আমেরিকার ফাইনাল হারের পর তার সাথে কেঁদেছিল গোটা আর্জেন্টিনা। কাতার বিশ্বকাপ জয়ের পরে কাঁদলেন মেসি, কাঁদালেন কোটি আর্জেন্টাইনকে। ঠিক যেমনটা ঘটেছিল ১৯৮৬ বিশ্বকাপ ম্যারাডোনা উঁচিয়ে ধরার পর। বেঁচে থাকতে মেসির সবচেয়ে বড় সমর্থক ছিলেন ম্যারাডোনাই, তার সমালোচকদের বরাবরই একহাত নিতেন দিয়েগো। অথচ তার উত্তরসূরির সবচেয়ে আনন্দের মুহূর্তেই দেখার জন্য নেই তিনি।

৩৬ বছর পর আবারও নিজেদেরকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বলার সুযোগ পেলে আর্জেন্টিনার মানুষ। ৩৬ বছর আগে যেই সুযোগ তাদের করে দিয়েছিলেন দিয়েগো ম্যারাডোনা, ২০২২ সালের শেষে এসে লিওনেল মেসিও সেই একই সুযোগ করে দিয়ে মিশে গেলেন ম্যারাডোনার সঙ্গে।

নামাজের সময় সূচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৩ অপরাহ্ণ
  • ৪:৪০ অপরাহ্ণ
  • ৬:৫২ অপরাহ্ণ
  • ৮:১৮ অপরাহ্ণ
  • ৫:১১ পূর্বাহ্ণ